খোজ মেলেনি হাত-পা বেধে সাগরে ফেলে দেয়া দুই জেলের!

0
26

বরগুনা (প্রতিনিধি) গভীর সমুদ্রে মাছ ধরার সময় জেলেদের ট্রলারে হামলা চালিয়ে জলদস্যুরা রিয়াজ ও আব্দুল মান্নান নামে দুই জেলেকে মারধরের পর হাত-পা বেধে সাগরে ফেলে দেয়। এই ঘটনার চার দিন পর মঙ্গলবার (২৭ আগস্ট ) সকাল পর্যন্ত ওই দুই জেলের কোন সন্ধান মেলেনি। নিখোজ রিয়াজের বাড়ি বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার ফুলহাতা এলাকায় এবং মান্নানের বাড়ি পাথরঘাটার রহিতা গ্রামে।
এই দিকে ইঞ্জিন বিকল করে দেওয়া ট্রলারটি নিয়ে ১০ জেলে চার দিন ধরে বঙ্গোপসাগরের বঙ্গবন্ধু চরে অবস্থান করছেন। সেখানে পানির গভীরতা কম থাকায় বড় জাহাজ পাঠানো সম্ভব হচ্ছে না।

গত শনিবার (২৪ আগস্ট) ভোর ৩টার দিকে গভীর সমুদ্রের চালনা বয়া এলাকায় “এফবি খাজা আজমীর” নামে ওই ট্রলারের ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এই সময় দুবৃর্ত্তরা ওই ট্রলারের ইঞ্জিন বিকল করে ১০ জেলেকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে ট্রলারের থাকা প্রায় পাচ লাখ টাকার ইলিশ মাছ লটে নিয়ে যায় এবং দুই জেলেকে মারপিট করে সাগরে ফেলে দেয়। তবে কোন বাহিনী এ দস্যুতা চালিয়েছে তা জানাতে সক্ষম হননি জেলেরা।

বরগুনা জেলা ফিশিং ট্রলার শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক দুলাল জানান, বঙ্গোপসাগরের চালনা বয়া এলাকায় মাছ শিকার করছিলেন জেলেরা এমতাবস্থায় হঠাৎ ১০-১৫ জন জলদস্যু ওই ট্রলারে উটে প্রথমত ইঞ্জিন বিকল করে। পরে ওই ট্রলারে থাকা প্রায় পাচ লাখ টাকার টাকার মাছ লুটে নেয়।সময় ওই ট্রলারের জেলেরা বাধা দিলে তাদের পিটিয়ে গুরুতর আহত করে এবং রিয়াজ ও মান্নানকে জাল দিয়ে বেধে পানিতে ফেলে দেয়।

এই ব্যাপারে কোস্টগার্ড মোংলার স্টাফ অফিসার লেফটেন্যান্ট ইমতিয়াজ আহমেদ জানান, ডাকাতি হওয়া ট্রলারের ১০ জেলে বঙ্গোপসাগরের বঙ্গবন্ধু চরে আশ্রয় নিয়েছেন । তাদের ট্রলার বিকল করে দিয়েছে দস্যুরা। কোস্টগার্ডের পক্ষথেকে আটকে থাকা জেলেদের খাবার ও পানি দেওয়া হয়েছে। উত্তাল সাগর শান্ত হলে জেলেদের সুন্দরবনের হিরন পয়েন্টে নিয়ে আসা হবে।

ঘটনা’ল রায়মঙ্গল নদীর বাংলাদেশ জল সীমায়। নিখোগ দুজনের খোজেও সন্ধান চালা”েছ কোস্টগার্ড । সেখানে পানির গভীরতা কম থাকায় বড় জাহাজ পাঠানো সম্ভব হচ্ছে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here